মোবাইল সাংবাদিকতায় অ্যাপসের ব্যবহার

লেখাটি শেয়ার করুন

বিশ্ব জুড়ে স্মার্টফোন ইউজার বৃদ্ধিও পাশাপাশি প্রতিদিন বাড়ছে অ্যাপসের সংখ্য। নানান সুবিধা আর উপযোগিতা নিয়ে প্রতিদিন এসব অ্যাপসগুলো হাজির হচ্ছে আপনার কাছে। এসব অ্যাপসের মধ্যে অনেক অ্যাপস আছে, যেটা মোবাইল সাংবাদিকতায় কাজে লাগতে পারে। সাংবাদিকতায় মোবাইলের সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে চাইলে, এসব অ্যাপস ব্যবহারের বিকল্প নেই।

বর্তমানে বেশিরভাগ সাংবাদিকই স্টোরী কভার করতে নোটপ্যাড বা ডায়েরি নিয়ে বের হন না। অনেকসময় কলমেরও দরকার হয় না। তিনি কনফারেন্স বা অন্য কোন ইভেন্ট চলাকালীন সময়ে অ্যাপসভিত্তিক ডিজিটাল নোটবুকে টুকে রাখেন সংবাদের জন্য দরকারি তথ্য। অনেক সময় গোটা সংবাদটি অ্যাপস দিলে লিখে সেটি অফিসে পাঠিয়ে থাকেন। আর সংবাদটি পাঠানোর জন্য বিভিন্ন ই-মেইল সার্ভিস প্রোভাইডার যেমন- গুগল, ইয়াহুর মোবাইল অ্যাপস দিয়ে কাজটি ঝটপট সেরে ফেলেন।

মোবাইলে ধারণকৃত খুব বড় সাইজের ভিডিও ফুটেজ পাঠাতে হবে। সেটারও সমাধান দিয়ে দিচ্ছে মোবাইল এ্যাপস। আপনি গুগল প্লে স্টোরে আপনি অনেক অ্যাপস পাবেন, যেটা দিয়ে বড় বড় ফাইল সহজেই আপনি মোবাইল দিয়েই পাঠাতে পারছেন। এছাড়া ছবি সম্পাদনা, ভিডিও এডিটিং সহ যাবতীয় সব কাজ মোবাইলে করার জন্য দারুণ সব অ্যাপস আছে গুগল প্লেস্টোরে।

ছবি সম্পাদনার জন্য ওপরের এ্যাপসগুলো ব্যবহার করা যেতে পারে

একজন সাংবাদিক ছবি তোলা ও সম্পানার জন্য যেসব অ্যাপস ব্যবহার করতে পারেন, সেগুলোর মধ্যে Pro Camera: (iOS) , Snapseed (iOS / Android), ProShot (iOS / Android), VSCO (iOS / Android) প্রভৃতি অন্যতম।

ভিডিও রেকর্ডিং এর জন্য কার্যকরী অ্যাপসগুলোর মধ্যে Filmic Pro (iOS / Android), Open Camera (Android only), Cinema 4K (Android only), Cinema FV-5 (Android only), Lapse it (iOS / Android)প্রভৃতি অন্যতম।

ভিডিও সম্পাদনার জন্য LumaFusion (iOS only), KineMaster (iOS / Android), PowerDirector (Android only), Alight Motion (Android), iMovie (iOS only) প্রভৃতি অন্যতম। এগুলো মূলত মাল্টি ট্রাক ভিডিও এডিটিং অ্যাপস। এছাড়া আরও সহজ কিছু ভিডিও অ্যাপস রয়েছে, যেগুলোর মধ্যেQuik (iOS / Android), Animoto (iOS / Android), Apple Clips (iOS), Splice (iOS), Enlight VideoLeap (iOS), CuteCut (iOS / Android), Movie Maker (Android), Vlogit (iOS / Android) ইত্যাদি ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

ছপি স্মার্ট ফিল্ম স্কুল

ভিডিও ফুটেজে সাব-টাইটেল ক্যাপশন ও লোগো বসানোর জন্য আলাদা কিছু অ্যাপস আছে। যেগুলোর মধ্যে Phonto (iOS / Android), Vont (iOS), DIY Subtitle (iOS), Movie Maker (Android), Autocap (Android) প্রভৃতি অন্যতম।

একজন মোবাইল সাংবাদিকের জন্য স্মার্টফোনের মাধ্যমে ভিডিও ফুটেজ ও ছবি সংগ্রহের পাশাপাশি অডিও রেকর্ডিং ও এডিটিং এর কাজটাও দারুন জরুরি। আপনি প্রাথমিক ভাবে মোবাইলের মাধ্যমে অডিও রেকর্ডিং এর জন্য RecForge Lite (Android only) I Voice Record Pro (iOSAndroid)  অ্যাপসদুটি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। এছাড়া অডিও সম্পাদনার জন্য Ferrite (iOS), AudioEvolution Mobile Studio (Android), n-Track (Android) প্রভৃতি অ্যাপসের সুনাম ও উপযোগিতা বেশ ভালো। এছাড়া টেক্সট ও ভিডিও এনিমেশন, লাইভ স্ট্রিমিং প্রভৃতি কাজের জন্য দরকারি অনেক অ্যাপসআছে, যেগুলো আপনার গল্প বলাকে আরও শক্তিশালী ও আকর্ষণীয় করতে সহায়তা করতে পারে।

সাংবাদিক ও প্রশিক্ষক বার্নহার্ড লিলের ব্যাক্তিগত টুইটার একাউন্টে তিনি একটি আলাদা তালিকা তৈরি করেছেন মোবাইল সাংবাদিকতায় আগ্রহীদের জন্য । সেটাও এখানে শেয়ার করা হলো সুবিধার জন্য।

সাংবাদিকতায় মোবাইল অ্যাপসের ব্যবহারের ক্ষেত্রে আপনার স্বাচ্ছন্দ ও সাবলিলতাই শেষ কথা। আপনি যে প্লাটফর্মে, যে অ্যাপস ব্যবহার করে আপনার প্রতিবেদনটি সঠিকভাবে তৈরি করতে পারেন, আপনি নিয়মিত কাজের জন্য সেটাই বেছে নেবেন।

সাংবাদিকতায় স্মার্টফোনের ব্যবহার বাড়াতে চাইলে, হয়ে উঠতে চাইলে একজন পুরোদস্তুও মোবাইল সাংবাদিক, আপনাকে মোবাইলের উপরোক্ত অ্যাপসগুলোর উপর দখল বাড়াতে হবে। একটি সংবাদ সংগ্রহ করতে যাওয়ার আগে সংবাদসংক্রান্ত তথ্যগত বিভিন্ন সোর্স ও বিষয়াদি সম্পর্কে সচেতন থাকার পাশাপাশি আপনার মোবাইলের সাথে সম্পৃক্ত বিভিন্ন টুলস ও প্রয়োজনীয় বহনযোগ্য যন্ত্রপাতি ঠিকঠাক আছে কিনা সেগুলো দেখে নিতে হবে। ভালো পরিকল্পনা, সচেতন প্রস্তুতি, দরকারি দক্ষতা আপনাকে আপনার স্মার্টফোন ব্যবহার করে দারুণ সব রিপোর্ট তৈরির সুযোগ করে দিতে পারে। বদলে দিতে পারে সাংবাদিক হিসেবে আপনার ক্যারিয়ার।

লেখাটি শেয়ার করুন

১ thought on “মোবাইল সাংবাদিকতায় অ্যাপসের ব্যবহার”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

শেয়ার সংখ্যা
Scroll to Top